কবিতা গদ্যকবিতা

মাহবুবা আক্তার স্মৃতির কবিতা- ওরা যোদ্ধা ওরাই দেশপ্রেমিক

“ওরা যোদ্ধা ওরাই দেশপ্রেমিক ”
মাহবুবা আক্তার স্মৃতি


একটি মানচিত্র হাতে নিয়ে দাঁড়িয়ে কিছু টাগড়া যুবক!
চোখে অজস্র
স্বপ্নের হাতছানি
বুকে মমতাময়ী মায়ের কিছু যত্নভরা চিঠি,
আর প্রিয় মুখগুলো ঠিক যেন ফ্রেমে আঁকা ছবি!”
এখানে ওরা যুদ্ধ করে
রাত-দিন প্রহরীর ছায়া আর-
বটবৃক্ষের মতোই আগলে রাখে সবকিছু;
কারণ-
অনেকগুলো যুদ্ধ এখনো বাকি
চলছে যুদ্ধ অবিরাম..
ওদের ছুটে চলাও বিস্ময়!
সেই জন্মলগ্নের প্রেক্ষাপট থেকে বর্তমান
প্রতিদিন’ই সংগ্রাম!
মাতৃউদর থেকে সদ্য জন্ম-
রক্তাক্ত মানচিত্রকে কোলে নিয়ে দাঁড়িয়ে ওরা।”
ওদের চোখ,হাত,পা,শরীর…সব
বন্দুকের নলের মতোই সবল!
অস্তিত্বকে ধূলোয় লুটিয়ে – করে
মাটির নামে শপথ!
দুর্বার ওদের ছুটে চলা..
আজও এখানে,এ মাটির বুকে কান পাতলে
তাদের গতি লক্ষ্য করা যায়,
এখনো তাদের তাজা রক্ত জেগে,
এখনো শঙ্কাহীন দুর্ভেদ্য ওদের ছুটে চলা..
কারণ
এখানে কিছু দামাল ছেলে ঘুমিয়ে,
চৈতন্য -অমাবস্যা, ঝড়ো রাত্রিচর হয়ে/ টেকনাফ থেকে তেতুলিয়া পর্যন্ত আজও ওরা ছুটে চলে..
ঠিক প্রহরীর মতো;
জল-স্থল -আকাশ পথ…সবখানে
ওদের ধ্বনি শিরায় শিরায় উচ্চারিত হয়!
এখানে কিছু শান্ত আর ভদ্রছেলে ঘুমিয়ে,
সময়ের পরিক্রমায় শান্ত মন অশান্ত আর
অভদ্র হয়ে রক্তে ভিজে একাকার হয়।”
এখানে,এ মাটিতে কিছু জাগ্রত বিবেক ঘুমিয়ে,
আজও তাদের সচেতন মন জেগে প্রিয় বাংলার বুকে,
এখানে কিছু দস্যু ছেলে ঘুমিয়ে,
যারা অস্ত্রের মহড়া দিয়ে,
পিস্তলের গুলিতে ঝাঁঝরা করে সব শকুনের চোখ!
পরাজয়ের অগ্নিশিখা জানলেও সে পথেই ওরা হাঁটে,
যে পথে আমার অস্তিত্ব, মায়ের হাসি,আমার সুখ-কান্না,
আমার প্রেম,প্রিয় কিছু মুখ শরীরের সাথে মিশে একাকার।
ওরা আজও অবিরাম সংগ্রামে লিপ্ত
দূষিত রক্ত থেকে পবিত্র রক্ত উদ্ধার করতে ওরা আজও যুদ্ধরত!
‘৭১’র বীরশ্রেষ্ঠদের রক্ত ওদের পোশাক আর গায়ে মিশে,
ওরা সৈনিক
ওরা যোদ্ধা
ওরা সাহসী,
ওরা যুগের পর যুগ বাংলার বুকে জয়ের ফুল ফুটাবে,
ওরা অতীত,
ওরা বর্তমান
ওরাই ভবিষ্যৎ,
প্রিয় দেশটাকে ওরাই ভালোবাসবে!!

Related Posts