পদ্যকবিতা

শেষ মিনতি- কাজী হাবিবুর রহমান

আজি একা ঘাটে বসে সন্ধ্যাবেলা,
তরী নাই,লগী নাই ভাবি একেলা।
কে যেন দিয়েছে বলে
সময় গিয়েছে চলে,
ত্বরা করি পার হও যায় যে বেলা।
কি করে হব যে পার নাই যে ভেলা!
শৈশবে কৈশোরে ভাবিনি কভু
কোন রথে কোন পথে ডাকছো প্রভু,
তারুণ্যে হেলা করে
কাটিয়েছি খেলা করে
যৌবনে প্রেম করে কেটেছে তবু,
খুঁজিনি,খুঁজিনি প্রভু তোমারে কভু।
ঘর ক’নে সংসার ছিল স্বপনে,
করেছি আবাদ ভুল-বীজ বপনে,
চেয়েছি যে গাড়ি বাড়ি,
গড়েছি তা কাড়িকাড়ি,
সব ছিল বাড়াবাড়ি বেভুল মনে,
কখনো ডাকিনি প্রভু সংগোপনে।
প্রৌঢ়ে করেছি ভোগ গড়েছি যত,
তবু যেন মিটেনিকো কাঙ্ক্ষা শত,
বুড়ো হয়ে ভেবে দেখি
জীবনে করেছি একি,
ভুল ছিল সবি ভুল বিষের মতো,
তনু-মনে হয়ে গেছে বিষম ক্ষত।
আজি খোদা দয়াময় বিপদে পড়ি,
করুণা ভিক্ষা মাগি তোমারে স্মরি,
পার হতে পরোপারে,
মাঝি দাও সেই তারে
ভালোবাসো তুমি যারে সর্বোপরি।
তা না হলে আমি যাব ডুবেই মরি।
হায় খোদা দয়াময় করি মিনতি,
দয়া করো, দয়া করো নেই তো গতি।
আকাশ ছেয়েছে মেঘে,
বাতাস ছুটেছে বেগে
সন্ধ্যা ঘনিয়ে এলো চাই সুমতি।
তোমার সকাশে করি শেষ মিনতি।

– – – – বরঙ্গাইল,মানিকগঞ্জ

Related Posts